সরকারি স্কুল শিক্ষক কিভাবে হওয়া যায় | How to Become School Teacher in Bengali

সরকারি স্কুল শিক্ষক (School Teacher) কিভাবে হতে হয়? সরকারি স্কুলে চাকরি পেতে কি করতে হবে, স্কুলে পড়ানোর জন্য কি কি দরকার, স্কুলের মাস্টার কিভাবে হওয়া যায়? ইত্যদি বিষয়গুলি আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে বিস্তারে জানবো।

অনেকেই শিক্ষক হিসেবে নিজেদের কেরিয়ার (Career) বানাতে চাই। এজন্য অনেক শিক্ষার্থী দিনরাত পড়াশোনাও করে। তবে অনেকে আছেন যারা শিক্ষক হতে চাই ঠিকই কিন্তু শিক্ষক হতে গেলে কি কি করা প্রয়োজন তা তারা জানে না।

শিক্ষক বা স্কুল মাস্টার কিভাবে হওয়া যায়? এ সম্পর্কে যদি সঠিক ধারণা না থাকে তাহলে সরকারি স্কুলে বা বেসরকারি স্কুলে চাকরি পাওয়া অনেক কঠিন হয়ে যায়। শুধুমাত্র সরকারি স্কুলেই নয় বেসরকারি স্কুলেও চাকরি পেতে গেলে শিক্ষক কিভাবে হওয়া যায় এ বিষয়ে সঠিক ধারণা থাকা একান্ত জরুরী।

সরকারি স্কুলের শিক্ষকের ক্ষেত্রে বিভিন্ন ভাগ রয়েছে, যেমন প্রাইমারি শিক্ষক, আপার প্রাইমারি শিক্ষক, মাধ্যমিক শিক্ষক, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষক ইত্যাদি। এই সমস্ত শিক্ষক হওয়ার জন্য কি কি যোগ্যতা লাগে, আলাদা কোন কোর্স করতে হয় ইত্যাদি বিষয়েও আজকে আমরা জেনে নেবো।

তাই আপনিও যদি ভবিষ্যতে একজন শিক্ষক হতে চান। তা বেসরকারি হোক বা সরকারি যে কোন ক্ষেত্রের শিক্ষক হতে চাইলে নিচের দেওয়া তথ্য গুলি এক এক করে জেনে নিন।

How to Become School Teacher in Bengali

বর্তমান সময়ে সরকারি স্কুলের শিক্ষক হওয়া কোনো সহজ কোনো বিষয় না। কেননা এখনকার কম্পিটিশনের যুগে সরকারি চাকরি পেতে গেলে সঠিকভাবে প্রস্তুতি নেওয়া খুবই জরুরী। তাই আপনিও যদি শিক্ষক হিসেবে নিজের ক্যারিয়ার সুনিশ্চিত করতে চান তাহলে সরকারি শিক্ষক কিভাবে হওয়া যায় এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

সরকারি স্কুলের শিক্ষক কিভাবে হওয়া যায়?

শিক্ষকতা পেশার সাথে যুক্ত হতে চাইলে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করার পরেই বা উচ্চ মাধ্যমিক পড়তে পড়তেই শিক্ষক হওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়াটা খুবই জরুরী। এমনটা করলে আপনার অনেকটা সময় বেঁচে যাবে। উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করার পরেই আপনি বেসরকারি স্কুলে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের পড়াতে শুরু করতে পারেন।

যদি আপনি সরকারি স্কুলের প্রাথমিক শিক্ষক হিসেবে নিযুক্ত হতে চান তাহলে আলাদা করে দুই বছরের ডিএলএড কোর্স করতে হবে।

আরো একটি কথা জানিয়ে রাখি, যেকোনো একটি বিষয়কে নিয়ে পড়াশোনা করা ভালো কেননা একটি বিষয়ে যদি ভালো জ্ঞান থাকে তাহলে আপনি সেই বিষয়ে শিক্ষার্থীদের ভালো করে পড়াতে পারবেন।

স্কুল শিক্ষক হওয়ার জন্য এমন কিছু বিষয় আপনাকে মাথায় রাখতে হবে, যেগুলি নিয়ে এইবার আমরা নিচে আলোচনা করছি-

1. উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করুন

সরকারি স্কুলের শিক্ষক হওয়ার জন্য প্রথমেই আপনাকে ভালো নম্বর পেয়ে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করতে হবে। মাধ্যমিক পাশের পর যে কোনো বেসরকারি স্কুলে আপনি পড়াতে চাইলে খুব সহজেই চাকরি পেতে পারেন। এর জন্য অবশ্যই আপনার বিষয় ভিত্তিক জ্ঞান থাকা জরুরী।

শুধু তাই নয়, উচ্চমাধ্যমিকে ভালো নম্বর থাকলে আপনি ভালো কলেজে অ্যাডমিশন পেয়ে যাবেন। এতে করে হাই স্কুল বা কলেজের শিক্ষকতার জন্য আপনি আপনার উচ্চ শিক্ষা কে ভালোভাবে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন।

2. গ্রাজুয়েশন সম্পূর্ণ করুন

উচ্চ মাধ্যমিক পাস করার পর গ্রাজুয়েশন করতে হবে। আপনি যে বিষয় নিয়ে শিক্ষকতা করতে চান সেই বিষয়টি গ্রাজুয়েশনের অনার্সের বিষয়ে রাখতে হবে। আপনি সেই বিষয়টিকেই নির্বাচন করবেন যেই বিষয়টি নিয়ে আপনি শিক্ষকতা করতে চান অর্থাৎ পড়াতে চান। সেই সাথে উক্ত বিষয়ে ভালো নম্বর নিয়ে গ্রাজুয়েশন পাস করা জরুরী। গ্রাজুয়েশনে ভালো নাম্বার থাকলে তা আপনার সরকারি চাকরি পেতে অনেক সুবিধা হবে।

3. বিএড (B.Ed) কোর্সে ভর্তি হয়ে যান

বর্তমান সরকারি নিয়ম অনুযায়ী উচ্চ মাধ্যমিক বা গ্রাজুয়েশন পাস করার পর আপনি কোনো সরকারি স্কুলে পড়াতে পারবেন না। পড়াতে গেলে গ্র্যাজুয়েশন পাশ করার পর আপনাকে বি এড (B.Ed) কোর্সে ভর্তি হতে হবে। বি এড কোর্স সম্পূর্ণ করলে তারপরে আপনি বেসরকারি এবং সরকারি স্কুলে পড়ানোর যোগ্য হয়ে যাবেন।

গ্রাজুয়েশনে ভালো নম্বর থাকলে আপনি যেকোনো সরকারি বিএড কলেজে ভর্তি হতে পারেন। তবে বর্তমানে আমাদের পশ্চিমবঙ্গে অনেকগুলি বেসরকারি বিএড কলেজ রয়েছে যেখানে টাকা দিয়ে দু বছরের জন্য বিএড কোর্স সম্পূর্ন করতে পারবেন।

আপনাকে জানিয়ে রাখি, গ্রাজুয়েশনে কমপক্ষে ৫০ শতাংশ নাম্বার না থাকলে আপনি বিএড কোর্স করতে পারবেন না এবং শিক্ষক হওয়ার স্বপ্ন আপনার অধরা থেকে যাবে।

4. সরকারি স্কুল শিক্ষকের বেতন

প্রাইমারি, আপার প্রাইমারি, মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক ইত্যাদি বিভাগের স্কুল শিক্ষকদের বেতনের কাঠামো আলাদা আলাদা রয়েছে। সরকারি স্কুল শিক্ষক প্রতি মাসে 33,000 থেকে শুরু করে 60,000 টাকার মধ্যে থাকে।

5. সরকারি শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি

আমাদের রাজ্য পশ্চিমবঙ্গে কখন শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি বের হবে সেই সম্পর্কে সঠিকভাবে কিছুই বলা যায় না। কেননা বিগত কয়েক বছর ধরে আমাদের রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগের নতুন কোনো বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়নি এবং শিক্ষক নিয়োগ হয়নি। তবে খুব শীঘ্রই নতুন করে রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হবার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গ স্কুল সার্ভিস কমিশনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এবং আমাদের চাকরির আপডেট সম্পর্কিত ওয়েবসাইট কাজকর্ম ডটকমে (kajkarmo.com) নতুন শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হলেই জানানো হবে।

6. সরকারি স্কুল শিক্ষকের কাজ

সরকারি স্কুল শিক্ষকেরা কি কাজ করে তা আমাদের সকলেরই জানা আছে। স্কুলে পড়ানো ছাড়াও স্কুল শিক্ষকদের আরো বেশ কিছু কাজ করতে হয় যেগুলি আমরা নিচে জানিয়েছি-

  • শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিত করার জন্য তাদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করা সরকারি স্কুল শিক্ষকের প্রধান কাজ।
  • সরকারি কোনো নতুন স্কিম বা প্রকল্প শুরু হলে তা শিক্ষার্থীদের জানিয়ে দেওয়া।
  • স্কুলের শিক্ষা ব্যবস্থাকে সঠিকভাবে সচল রাখা।
  • সমাজে শিক্ষার গুরুত্ব সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করা একজন সরকারি স্কুল শিক্ষকের অন্যতম কাজ।

সরকারি স্কুল শিক্ষক হওয়ার জন্য প্রস্তুতি

যেকোনো সরকারি চাকরি পাওয়ার জন্য সঠিকভাবে প্রস্তুতি নেওয়া জরুরি। তাই সরকারি স্কুল শিক্ষক হওয়ার জন্যও আপনাকে সঠিকভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে। নিচে সরকারি স্কুল শিক্ষক চাকরির প্রস্তুতি সম্পর্কিত বেশ কিছু বিষয়ে আলোচনা করেছি যেগুলি আপনার শিক্ষক হওয়ার যাত্রা কে সফল করতে সাহায্য করবে।

1. বেসরকারি বিদ্যালয়ে পড়ান

সরকারি স্কুলে শিক্ষকতা করার আগে আপনাকে অবশ্যই বেসরকারি স্কুলে পড়ানো দরকার। প্রাইভেট বা বেসরকারি স্কুলে পড়ালে আপনার পড়ানোর বিষয়ে অভিজ্ঞতা বাড়বে সেইসঙ্গে আপনি নতুন নতুন বিষয় জানতে পারবেন। পরবর্তীতে সরকারি স্কুল শিক্ষক নির্বাচন এর পরীক্ষাতে আপনি এর ভাল ফলাফল পাবেন। সরকারি স্কুল শিক্ষক হতে চাই এমন অনেকেই প্রাইভেট স্কুলে পড়ানো বেশ উপযোগী বলে মনে করে থাকে।

2. কোচিং সেন্টারে ভর্তি হোন

কোচিং সেন্টারে ভর্তি হলে একটা সুবিধা হয়, সেটা হচ্ছে আপনি নিয়মমাফিক পড়াশুনার মধ্যে থাকেন এবং আপনার চাকরির প্রস্তুতিও ভালোভাবে সম্পন্ন হয়।

কোচিং সেন্টারে ভর্তির ক্ষেত্রে একটা কথা মনে রাখতে হবে, এমন কোনো কোচিং সেন্টারে ভর্তি হতে হবে যেখানে সরকারি চাকরির ভালো প্রস্তুতি হয়। কম টাকার চক্করে ফালতু কোনো কোচিং সেন্টারে ভর্তি হওয়া যাবে না। এতে আপনার সময় এবং টাকা দুটোই নষ্ট হবে।

3. পড়ার জন্য টাইম টেবিল তৈরি

সরকারি স্কুল শিক্ষক এর পরীক্ষায় পাশ করতে হলে আপনাকে সঠিক টাইম টেবিল বানিয়ে পড়াশোনা করতে হবে। এতে আপনি পড়াশোনা করার জন্য বেশি সময় বের করতে পারবেন। তবে একটি কথা মাথায় রাখবেন পড়ার জন্য সকালে এবং রাত্রে সময় নির্বাচন করবেন। কেননা এই সময়ে শান্ত পরিবেশ থাকে যা পড়াশোনা করার জন্য উপযুক্ত।

4. অনলাইনে পড়াশোনা করুন

কোনো বিষয়ে জানতে গেলে বই পড়ার থেকে ভালো বিকল্প আর হয় না। তবে বর্তমানে অনলাইনে ইউটিউবের মাধ্যমে এমন কিছু শিক্ষক পড়ান যেগুলি দেখলে বিষয়ের জ্ঞান আরো স্পষ্ট হয়। তাই বই পড়ার পাশাপাশি অনলাইনে ক্লাস জয়েন করলে আপনি আরো অনেক নতুন নতুন বিষয়ে জানতে পারবেন।

তাই দরকার হলে অনলাইন প্লাটফর্মে বিভিন্ন শিক্ষামূলক কোর্সে ভর্তি হয়ে নিজের জ্ঞানকে প্রসারিত করতেই পারেন। এটা করলে আপনার কোন লস হবে না, উপরন্ত আপনি অন্যদের থেকে অনেকটা এগিয়ে থাকবেন। এমনকি এটি আপনাকে সরকারি শিক্ষকতার চাকরির পরীক্ষায় পাস করতে সাহায্য করবে।

5. সিলেবাস কে বুঝতে হবে

যেকোনো প্রতিযোগিতামূলক চাকরির পরীক্ষার ক্ষেত্রে পরীক্ষার সিলেবাস কে ভালো করে জানা এবং বোঝা খুবই জরুরী। সিলেবাস সম্পর্কে ভালো জ্ঞান না থাকলে সেই চাকরির পরীক্ষার প্রস্তুতি সঠিকভাবে নেওয়া কখনোই সম্ভব না। আর সিলেবাস ভালোভাবে জানা থাকলে সেখান থেকে কি কি ধরনের প্রশ্ন আসতে পারে সে সম্পর্কে অনেকটা পরিষ্কার ধারণা চলে আসে।

6. পছন্দের বিষয়ের ভিত মজবুত করুন

আপনি যে বিষয়ের শিক্ষক হতে সেই বিষয় সম্পর্কে ভালো জ্ঞান থাকা দরকার। আপনাকে সব সময় আপনার পছন্দের বিষয়ের প্রতি ফোকাস দিতে হবে। এর জন্য বিভিন্ন বই পড়তে হবে, ইন্টারনেটে রিসার্চ করতে হবে। এমনটা করলে আপনি সরকারি স্কুলে চাকরি পাওয়ার জন্য অনেক সুবিধা পাবেন।

সবশেষে,

সরকারি স্কুল শিক্ষক হওয়ার উপায় সম্পর্কে লেখা আজকের এই আর্টিকেলটি সমাপ্ত হলো। আশা করছি, এই আর্টিকেলে দেওয়া বিভিন্ন তথ্য গুলি আপনার কাজে আসবে। আপনি যদি ভবিষ্যতে শিক্ষক হতে চান তাহলে উপরে দেওয়া বিষয়গুলি মাথায় রেখে প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করতে পারেন।

আজকের এই আর্টিকেল সম্পর্কে আপনার যদি কোন মতামত বা প্রশ্ন থাকে তাহলে আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে অবশ্যই জানাবেন। আর কেরিয়ার, অনলাইন ইনকাম, রোজগারের উপায়, পার্সোনাল ফাইন্যান্স ইত্যাদি বিষয়ে নিয়মিত আপডেট থাকতে আমাদের বাংলা রোজগার ওয়েবসাইটে নিয়মিত ভিজিট করতে ভুলবেন না।

Previous articleমাসিক 1 লাখ টাকা ইনকাম- এই 5 টি স্কিল (Skill) সম্পর্কে জেনে রাখুন | Top 5 Skill to Earn 1 Lakh per Month
Next articleপেটিএম (Paytm) এজেন্ট হয়ে টাকা ইনকাম | Paytm Agent Application and Earn Money