অনলাইনে ব্যবসা কিভাবে শুরু করা যায়? | How to Start Online Business in Bengali

আপনি যদি অনলাইনে ঘরে বসে ব্যবসা বা কাজ করে লাখ টাকা প্রতি মাসে ইনকাম করতে চান তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি একেবারে আপনার জন্য। আপনাকে বলে রাখি, আপনি যদি অনলাইনে কাজ করে একবার সফল হতে পারেন তারপরে আপনার টাকার সমস্যা হবে না। বর্তমানে অনেকেই টাকা ইনকাম করার জন্য অনলাইনে বিভিন্ন কাজ করছে এবং সফলও হচ্ছে।

তবে যে কোনো কাজের মত অনলাইনে ব্যবসা বা কাজ করার ক্ষেত্রেও পরিশ্রম এবং ধৈর্যের কথাটা মাথায় রাখতে হবে। আপনি যদি মনে করেন একদিনেই আপনি লাখ লাখ টাকা ইনকাম করতে শুরু করে দেবেন তাহলে আপনি ভুল ভাবছেন। এখানে অনলাইনে ব্যবসা করার ক্ষেত্রে আপনাকে কিছুটা সময় দিতে হবে সেটা কয়েক মাস ও হতে পারে। মাঝপথে ছেড়ে পালালে আপনার হাতে কিছুই আসবেনা।

আমি এমন অনেক লোককে জানি যারা অনলাইনে কাজ করে ঘরে বসেই লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছে। আমরা তো অনেকেই অনলাইনে ঘরে বসে টাকা ইনকাম করতে চাই কিন্তু আমাদের সঠিক ধারণা না থাকাই আমরা অনলাইনের এই কাজে সফল হতে পারি না। যেকারনে অনলাইনে ব্যবসা করে টাকা ইনকাম করার স্বপ্ন আমাদের স্বপ্নই থেকে যায়।

তাই আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে অনলাইনের মাধ্যমে শুরু করা যায় এমন কয়েকটি কাজ সম্পর্কে আপনাকে বলবো যেগুলি শুরু করে একটা সময় আপনি অনলাইন থেকে টাকা রোজগার করা শুরু করতে পারবেন।

অনলাইন ইনকামের ক্ষেত্রে আর একটা কথা মাথায় রাখতে হবে, সেটা হচ্ছে- এক্ষেত্রে কোনো মাসে আপনি প্রচুর টাকা ইনকাম করবেন আবার কোন কোন মাসে কম টাকা ইনকাম হবে। তাই অনলাইনে কাজের ক্ষেত্রে আপনাকে ধৈর্য রাখতে হবে এবং সেইসাথে প্রয়োজন অনুযায়ী পরিশ্রম করতে হবে। আপনি যখন অনলাইনের কাজে অভ্যস্ত হয়ে যাবেন তখন আপনার প্রতি মাসে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা আসতে শুরু করবে।

অনলাইনে ব্যবসা শুরু করার উপায়

অনলাইনে কাজ শুরু করার কোন কোন উপায় গুলি রয়েছে তা বলার আগে অনলাইন কাজ করতে হলে কি কি জিনিস দরকার হবে সেই সম্পর্কে জানিয়ে রাখি। অনলাইনে কাজ শুরু করার জন্য আপনার কাছে একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ এবং একটি মোবাইল থাকতে হবে। সেইসাথে ভালো ইন্টারনেট কানেকশন থাকাটাও জরুরী।

নিচে অনলাইনে ইনকাম করার বেশ কয়েকটি উপায় সম্পর্কে জানিয়েছে। যেগুলোর মধ্যে এক বা একাধিক উপায় এর কাজ করে আপনি অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। চলুন এইবার তাহলে অনলাইন ইনকাম (ব্যবসা/কাজ) করার জন্য বিভিন্ন উপায় গুলি পরপর দেখে নেওয়া যাক।

1. ডিজিটাল মার্কেটিং (Digital Marketing Business)

ঘরে বসে কম সময়ের মধ্যে যদি আপনি অনেক টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ করতে পারেন। ডিজিটাল মার্কেটিং হচ্ছে অনলাইনে কোন কোম্পানির প্রোডাক্ট গুলিকে সঠিক কাস্টমারদের কাছে পৌঁছে দেওয়া এবং তাদের সেল বা বিক্রি বাড়ানো। বর্তমানে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজের চাহিদা আকাশছোঁয়া।

ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের কাজ করার আগে আপনাকে ডিজিটাল মার্কেটিং কি সে সম্পর্কে বিস্তারে জানতে হবে এবং শিখতে হবে। মার্কেটিং সম্পর্কে বেসিক জ্ঞান জানার পর আপনি যে কোনো কোম্পানির ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ শুরু করতে পারেন। পরে আপনি এটিকে ব্যবসায় রূপান্তর করে আপনার ক্লায়েন্ট জোগাড় করে কাজ করতে পারেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর ব্যবসা যদি একবার আপনি দাঁড় করাতে পারেন তাহলে কি পরিমান যা ইনকাম হবে তা আপনার ধারণার বাইরে। আপনি চাইলে নিজের ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সিও বানাতে পারেন।

2. ইউটিউবের মাধ্যমে ব্যবসা (Youtube Business)

ইউটিউব এর মাধ্যমে আবার কিভাবে ব্যবসা করা যায়? এমন প্রশ্ন আপনার মনে আসতেই পারে। আপনি হয়তো ভাববেন Youtube এ তো শুধুমাত্র ভিডিওই দেখা যায় তাহলে ব্যবসা কিভাবে করা যায়।

হ্যাঁ, ইউটিউবের মাধ্যমে ভিডিও দেখা যায় ঠিকই কিন্তু সেই ভিডিওর মাধ্যমে কত লোক তাদের ব্যবসা করছে তা আপনার সঠিক জানা না থাকতেও পারে। Youtube এর মাধ্যমে ব্যবসা শুরু করার আগে আপনাকে ইউটিউব সম্পর্কে বেসিক বিষয়গুলি জেনে নিতে হবে।

তারপরে আপনি কোন একটি দক্ষতা (Skill) অর্জন করে তার ভিত্তিতে ইউটিউব (Youtube) এ ভিডিও আপলোড করবেন। তাতে ভিউজ আসবে। গুগল অ্যাডসেন্স লাগিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। শুধু তাই নয়, পরবর্তীতে চাইলে আপনি আপনার কোন প্রোডাক্ট বানিয়ে তা ইউটিউবের মাধ্যমে সেল করতে পারবেন।

৩. ব্লগ (Blog) এর মাধ্যমে ব্যবসা (Blogging Business)

আপনার যদি লেখার দক্ষতা (Writing Skill) থাকে তাহলে নিজের ব্লগ বানিয়ে তাতে কোন নির্দিষ্ট টপিকের উপরে লেখা পাবলিশ করতে পারেন। ব্লগে একটা ভালো সংখ্যায় আর্টিকেল পাবলিশ করার পর আপনার তাতে Adsence ad এবং Advertising এবং সেই সাথে অ্যাফিলিয়েটেড মার্কেটিও শুরু করতে পারেন। এতে আপনার প্রতি মাসে ভালো ইনকাম শুরু হবে। আর এটাকে আপনি ব্যবসা রূপে দেখতেই পারেন।

আপনি আপনার ব্লগে বেশি পরিমাণ ভিউজ বা ট্রাফিক আনার জন্য ব্লগকে গুগল সার্চ কনসোল (Google Search Console) এ সাবমিট করতে হবে। সেইসাথে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে লিংক শেয়ার করতে পারেন।

৪. বাই-সেল (Buy-Sell) এর ব্যবসা (Buy-Sell Business)

আপনি চাইলে অনলাইন প্রোডাক্ট বাই সেল অর্থাৎ কেনে-বেচার ব্যবসা করতে পারেন। কি করতে হবে বলছি। অনলাইন থেকে আপনাকে বিভিন্ন প্রোডাক্ট গুলি ডিসকাউন্ট অফারে কিনে নিতে হবে এতে করে আপনার লাভ বেশি হবে। এরপর ঐ সমস্ত প্রোডাক্ট গুলি অনলাইন সেলিং প্ল্যাটফর্ম যেমন OLX ইত্যাদিতে সাবমিট করতে হবে। সেগুলি আপনি লাভের মার্জিন রেখে দাম নির্ধারণ করবেন এবং বিক্রি করবেন।

৫. সার্ভিস বা পরিষেবা প্রদান (Service Providing Business)

আপনি যদি কোনো কাজে পারদর্শী হয়ে থাকেন তাহলে অনলাইনে সার্ভিস প্রদানের মাধ্যমে ব্যবসা দাড় করাতে পারেন৷ বিষয়টি আপনাকে বুঝিয়ে বলি। ধরুন আপনি ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট এর কাজ জানেন। ক্লায়েন্ট জোগাড় করে তাদের জন্য ওয়েবসাইট সেটআপ করে দিতে পারেন। আর এর জন্য আপনি নির্ধারিত একটা টাকা চার্জ করবেন।

যখন আপনার কাজ এবং ক্লায়েন্টের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে তখন আপনি একটি অফিস বানিয়ে কয়েকজন ওয়েবসাইট ডেভেলপারকে নিয়োগ (Hire) করে তাদেরকে দিয়ে কাজ করাতে পারেন এতে আপনার ইনকামের পরিমাণ অনেক বৃদ্ধি পাবে। আপনি যেকাজ জানেন বা ভবিষ্যতে শিখতে চান তার পরিষেবা দেওয়ার কাজ করতে পারেন।

এছাড়াও আরো অনেক অনলাইন কাজ (Online Business) রয়েছে যেগুলো থেকেও টাকা ইনকাম করা সম্ভব। আজকে আমরা আপনাকে এমন কিছু উপায় সম্পর্কে জানালাম যেগুলো সবচেয়ে বেশি প্রচলিত এবং ইনকামও ভালো করা যায়। তাছাড়া ভবিষ্যতেও এগুলোর ক্যারিয়ার Opportunity অনেক বেশি। অনলাইন ব্যবসার ক্ষেত্রে একটা কথাই মাথা রাখতে হবে, সেটা হচ্ছে সঠিক জ্ঞান এবং পরিশ্রম ছাড়া অনলাইন ব্যবসায় সাফল্য লাভ করা কোনোভাবেই সম্ভব না।

সবশেষে,

আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাকে অনলাইন ব্যবসা শুরু করার কয়েকটি উপায় সম্পর্কে জানিয়েছি। আপনি চাইলে এর মধ্যে থেকে যে কোনো একটিকে বেছে নিয়ে অনলাইন থেকে সে সম্পর্কে বিস্তারে জেনে কাজ শুরু করে দিতে পারেন। এই সমস্ত কাজগুলি অন্যান্য যে কোনো কাজের পাশাপাশি পার্টটাইম হিসেবেও বাড়িতে থেকেই করা যায়।

একটু পরিশ্রম করে আপনি যদি অনলাইন ব্যবসা দাড় করাতে পারেন তাহলে সেটি ফুল টাইম হিসেবে করলেও আপনি প্রতি মাসে মোটা টাকা কামাই করতে পারবেন।

এইরকম রোজগারের বিভিন্ন উপায়, ব্যবসার আইডিয়া, অনলাইন ইনকাম, পার্সোনাল ফাইনান্স ইত্যাদি বিষয়ে নিয়মিত নতুন নতুন তথ্য জানতে চাইলে আমাদের বাংলা রোজগার ওয়েবসাইটে নিয়মিত ভিজিট করতে একদম ভুলবেন না।

Previous articleগরিব থেকে ধনী কিভাবে হওয়া যায়? | How to Become Rich from Poor in Bengali
Next articleবড়লোক (ধনী) হওয়ার 4 টি স্মার্ট উপায়